Snapdragon 875’র চেয়ে পাওয়ারফুল হবে Exynos 1000

 

বর্তমানে স্যামসাংয়ের সিংহভাগ স্মার্টফোনের ব্যবহৃত হচ্ছে স্যামসাংয়ের নিজস্ব এক্সিনোজ লাইনআপ চিপসেট। যদিও এক্সিনোজ প্রসেসরের পারফরম্যান্স নিয়ে খুব বেশি সন্তুষ্ট নন অনেক ইউজার। তবে ইতোমধ্যেই স্যামসাং তাদের নেক্সট জেনারেশন ফ্ল্যাগশিপ চিপসেট Exynos 1000, আগামীবছর বাজারে ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছে। গিয়েছে আপকামিং Exynos 1000 SoC (সিস্টেম অন চিপ) নিয়ে বেশ আশাবাদী এবার স্যামসাং।

গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে, কোয়ালকমের আপকামিং ফ্ল্যাগশিপ চিপসেট Snapdragon 875 এরচেয়েও পাওয়ারফুল হবে স্যামসাংয়ের Exynos 1000। সম্প্রতি একটি কোরিয়ান ফোরামে লিক করা হয়েছে এক্সিনোস ১০০০ এবং স্ন্যাপড্রাগন ৮৭৫ এর গীকবেঞ্চ স্কোর ও পারফরম্যান্সের ডিটেইলস। রিপোর্ট অনুযায়ী, Exynos 1000 এর সাথে একটি এবং Snapdragon 875 এর সাথে একটি, মোট দুটি ভিন্ন ভিন্ন Galaxy S21 ইউনিট পরীক্ষা করা হয়েছিল গীকবেঞ্চে।

 

গীকবেঞ্চে প্লাটফর্মে সিঙ্গেল-কোরে Exynos 1000 স্কোর করেছে ১৩০২ পয়েন্ট এবং মাল্টি-কোরে ৪২৫০ পয়েন্ট। অন্যদিকে Snapdragon 875 সিঙ্গেল-কোরে স্কোর করেছে ১১৫৯ পয়েন্ট, এবং মাল্টি-কোরে পেয়েছে ৪০৯০ পয়েন্ট। বেঞ্চমার্ক টেস্টিংয়ের ফলাফল আসলেই বেশ চমকপ্রদ! কেননা পারফর্মেন্সের বিবেচনায় প্রথমবারের মতো কোয়ালকমের ফ্ল্যাগশিপ চিপের এগিয়ে আছে স্যামসাংয়ের এক্সিনোজ চিপসেট। Exynos 1000 এর পারফর্মেন্সের মূল মন্ত্র হতে পারে এতে ARM’র লেটেস্ট ও সবচেয়ে পাওয়ারফুল কোর Cortex-X1 এর ব্যবহার।

যদিও গীকবেঞ্চে পরীক্ষিত ডিভাইজগুলো প্রি প্রোডাকশন ইউনিট, তাই অফিসিয়াল রিলিজের আগে নিশ্চিত করে চিপসেট দুটির পারফরম্যান্স নিয়ে কিছু বলা যাচ্ছে না। তাছাড়া এই বেঞ্চমার্ক টেস্টিংয়ের প্রমাণ হিসেবে কোনো স্ক্রিনশট-ও পোস্ট করা হয়নি ফোরামে, তাই এর সত্যতা নিয়ে সন্দেহ থেকেই যায়। অন্যদিকে টেস্টিংয়ের জন্য আন-রিলিজড এই ফোন কিংবা প্রসেসরগুলোর অ্যাক্সেস কিভাবে পাওয়া গেছে, তা নিয়েও প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে!

বন্ধুদের সাথে পোস্টটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂




যেকোনো সমস্যা হলে গ্ৰুপে পোস্ট করলে অথবা পেজে মেসেজ দিলে সমাধান পেয়ে যাবেন 🔥🌺♥️🍀🌷
আমার সাথে যোগাযোগ করার জন্য,

Comment

Previous Post Next Post