পুরোনো আইফোন থেকেও চার্জার সরিয়ে নিচ্ছে অ্যাপল

 

গত ১৩ অক্টোবর আ্যপল তাদের বহুল প্রতিক্ষীত iPhone 12 সিরিজ উন্মোচন করেছে। আ্যপল পার্কে অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া ‘হাই স্পিড’ ইভেন্টে আ্যপল নিশ্চিত করেছে যে, চলতি বছর iPhone 12 সিরিজের বক্সে সাথে কোনো চার্জিং ব্রিক বা ইয়ারপড আসবে না। তবে এবার শুধু iPhone 12 সিরিজই নয়, এখন পুরনো iPhone 11, iPhone XR ও iPhone SE 2020 এর বাক্স থেকেও পাওয়ার অ্যাডাপ্টার ও ইয়ারপড ও সরিয়ে নিচ্ছে আ্যপল।

আইফোন

আইফোনের বক্সে অ্যাক্সেসরিজ না দেওয়ার বিপরীতে অ্যাপল তাদের ইয়ারপডের দামে ১০ ডলার ডিসকাউন্ট ঘোষণা করেছে। যদিও আ্যপলের এই সিদ্ধান্তটি অধিকাংশ গ্রাহক স্বাভাবিকভাবে নিচ্ছেন না, কেননা তাদের এখন প্রয়োজনের চেয়ে অতিরিক্ত টাকা খরচ করতে হবে সম্পূর্ণ প্যাকেজটি পাওয়ার জন্য। এখন শুধুমাত্র এই আইফোনগুলোর সাথে একটি USB C টু Lightning ক্যাবল দিবে আ্যপল। আ্যপলের এই সিদ্ধান্তের স্বপক্ষে তারা বলেছে, বিশ্বব্যাপী ক্রমবর্ধমান ইলেকট্রিক বর্জ্য কমানোর লক্ষ্যেই তাদের এই উদ্যোগ। আ্যপলের দাবি, ফোনে চার্জার না দিলে ২০৩০ সালের মধ্যে পুরোপুরি কার্বন নিঃসরণ পর্যায় চলে যেতে পারবে তারা।

 

তবে এখানে ব্যতিক্রম শুধুমাত্র ফ্রান্স। দেশটির সরকার অনেক আগেই গ্রাহকদের স্মার্টফোন বক্সে চার্জার ও ইয়ারফোন সহ প্রয়োজনীয় আ্যকসেসোরিজ দেয়া বাধ্যতামূলক করেছে। ফ্রান্স ছাড়া অন্যান্য দেশে iPhone 12, iPhone 12 Mini, iPhone 12 Pro বা iPhone 12 Pro Max – কোনো ডিভাইসের সাথেই চার্জার অ্যাডাপ্টার এবং ইয়ারপড দেওয়া হবেনা। শুধু তাই নয়, iPhone 11, iPhone SE এবং iPhone XR সিরিজের নতুন আইফোনগুলো কিনতে চাইলে ওই অত্যাবশকীয় অ্যাক্সেসরিজগুলি আলাদাভাবে কিনতে হবে গ্রাহকদের।

স্বাভাবিকভাবেই এগুলি আলাদাভাবে কিনতে হলে গ্রাহকদের ১,০০০ টাকার বেশি খরচ করতে হবে। আর এই হঠকারী পদক্ষেপের জন্যই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলের শিকার হয়েছে অ্যাপল। তবে যাইহোক, এখনো পর্যন্ত এ সমালোচনার কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি অ্যাপল। এখন দেখার বিষয় এটাই, সমস্ত বিতর্ক ছাড়িয়ে নতুন আইফোন সিরিজটি আগের আইফোনগুলোর মতই জনপ্রিয়তা পায় কিনা!

বন্ধুদের সাথে নিউজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂




যেকোনো সমস্যা হলে গ্ৰুপে পোস্ট করলে অথবা পেজে মেসেজ দিলে সমাধান পেয়ে যাবেন 🔥🌺♥️🍀🌷
আমার সাথে যোগাযোগ করার জন্য,

Comment

Previous Post Next Post