স্বয়ংক্রিয় ভাবে ঠিক হয়ে যাবে ফোল্ডেবল আইফোনের স্ক্রিন ড্যামেজ

 

বর্তমানে গ্লোবালি ফোল্ডেবল স্মার্টফোনের বাজারে নেতৃত্ব দিচ্ছে বিশ্বের শীর্ষ স্থানীয় দুই স্মার্টফোন মেনুফেকচারার স্যামসাং ও হুয়াওয়ে। বিগত বছরে এর মধ্যে মটোরোলা আসলেও আশানুরূপ সাফল্য পায়নি তারা। তাই এখন প্রযুক্তি বিশ্ব অপেক্ষায় রয়েছে, কবে নাগাদ মার্কিন টেক জায়ান্ট আ্যপল অভিষেক করবে ফোল্ডেবল স্মার্টফোনের দুনিয়ায়। যদিও অনেক আগে থেকেই শোনা যাচ্ছিলো, ইতোমধ্যেই গোপনে নতুন ফোল্ডেবল স্মার্টফোন নিয়ে কাজ করছে আ্যপল।

আইফোন

এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি আ্যপল ইনসাইডারের একটি প্রতিবেদন থেকে জানা গিয়েছে, আ্যপল এমন একটি ফোল্ডেবল ডিসপ্লে এর পেটেন্ট করেছে যা নিজে থেকে ছোটখাটো দাগ সারিয়ে তুলতে পারবে। পেটেন্টের টাইটেলে লেখা হয়েছে “Electronic Devices With Flexible Display Cover Layers”। অর্থাৎ বোঝাই যাচ্ছে, ভাঁজ করার সময় কিংবা অন্যান্য কারণে ডিসপ্লের উপর সবরকম আঘাত কমিয়ে আনাই এর মূল উদ্দেশ্য।

 

লিক হওয়া প্যাটেন্ট অনুসারে, স্ক্রিনের উপর কোনো স্ক্র্যাচ, ডেন্ট, দাগ, কিংবা আঁচড় পরে গেলে তা নিয়ে ইউজারদের আর ভয় পেতে হবে না। কেননা আ্যপলের ‘সেলফ-হিলিং’ টেকনোলোজিটি ইউজারদের হস্তক্ষেপ ছাড়াই স্বয়ংক্রিয় ভাবে ডিসপ্লে ড্যামেজগুলো ঠিক করে ফেলবে। তবে এটা এখনো নিশ্চিত ভাবে জানা যায়নি যে, ‘সেলফ-হিলিং’ টেকনোলোজিটি কী শুধু ফোল্ডেবল ফোনের হিঞ্জ (কব্জায়) ব্যবহৃত হবে নাকি সুম্পূর্ণ স্ক্রিনে।

ধারণা করা হচ্ছে, ফোল্ডেবল ডিসপ্লেতে এ ধরণের টেকনোলজি ব্যবহৃত হলে আগামী ভাঁজ করার এই ফোনগুলো আরও টেকসই হয়ে উঠবে। তবে এই টেকনোলোজিটি হয়তো আ্যপলের ফার্স্ট জেনারেশন ফোল্ডেবল আইফোনের সাথে আসবে না। কেননা ইতোমধ্যেই স্যামসাংয়ের কাছ থেকে ফোল্ডেবল স্মার্টফোনের জন্য স্যামসাংয়ের কাছে স্যাম্পল ডিসপ্লে অর্ডার করেছে, যা এখনো প্রক্রিয়াধীন। আশা করা যাচ্ছে, ২০২১ সালের মধ্যে না হলেও ২০২২ সালের শুরুতেই ফোল্ডেবল আইফোন বাজারে আনতে সক্ষম হবে আ্যপল।

বন্ধুদের সাথে নিউজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂




যেকোনো সমস্যা হলে গ্ৰুপে পোস্ট করলে অথবা পেজে মেসেজ দিলে সমাধান পেয়ে যাবেন 🔥🌺♥️🍀🌷
আমার সাথে যোগাযোগ করার জন্য,

Comment

Previous Post Next Post