শাওমি অ্যানাউন্স করেছে নতুন গেম বুস্টিং ফিচার “র‌্যামডিস্ক”

 

বর্তমানে বেশিরভাগ স্মাটফোনেই ৮ জিবি র‌্যাম থাকাটাকেই স্ট্যান্ডার্ড মানা হয়ে থাকে। তবে মর্ডার্ন যুগের ডেডিকেটেড গেমিং স্মার্টফোনগুলো এখন বাজারে ছাড়া হচ্ছে ১৬ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম ভেরিয়েন্টে। মূলত স্মার্টফোনের পারফর্মেন্সের তুলনায় মাল্টিটাস্কিংয়ে ক্ষেত্রে র‌্যাম স্টোরেজের ভূমিকা বেশি থাকে। সুতরাং চিপসেটের পাশাপাশি ফোনের র‌্যাম বেশি হলে পারফরম্যান্স ভালো হবার একটা নিশ্চয়তা দেয়াই যায়। এরই ধারাবাহিকতায় এবার স্মার্টফোনের গেমিং পারফর্মেন্সের উন্নতির জন্য র‌্যামডিস্ক নামের একটি নতুন ফিচার অ্যানাউন্স করেছে চাইনিজ টেক জায়ান্ট শাওমি।

শাওমি

যদিও এ ধরনের প্রযুক্তি কম্পিউটারে অনেক আগে থেকেই উপলব্ধ ছিল, তবে স্মার্টফোনে এটি একেবারেই নতুন। মূলত শাওমির র‌্যামডিস্ক ফিচারের কাজ হচ্ছে, ভার্চুয়াল স্টোরেজ হিসাবে ব্যবহার করার জন্য র‌্যামের একটি অংশ আলাদা করা। যা স্মার্টফোনে ব্যবহৃত সাধারণ স্টোরেজ প্রযুক্তির তুলনায় র‌্যামডিস্কের গতি উল্লেখযোগ্যভাবে দ্রুত হয়ে থাকে।

 

এতে স্বভাবতই পার্টিকুলার অ্যাপ ও গেম এর স্পীড কয়েকগুন বেড়ে যায়। আপাতত নির্দিষ্ট কিছু শাওমি স্মার্টফোনের চালু হয়েছে র‌্যামডিস্ক ফিচার। শাওমি দাবি, র‌্যামডিস্ক মোডে ‘Peace Elite’ গেমটি ইনস্টল করতে সময় লাগবে মাত্র ১০ সেকেন্ড, যা সাধারণ ইনস্টলেশন মোডের চেয়ে প্রায় ১০০% দ্রুত। বর্তমানে ‘QQ Speed, Glory of the King, and Peace Elite’ সহ ১০ টিরও বেশি জনপ্রিয় গেমে সমর্থন করবে র‌্যামডিস্ক মোড।

আপনার Mi 10 Ultra স্মার্টফোনে র‌্যামডিস্ক ট্রায়াল মোডটি ব্যবহার করতে আপনাকে গেম সেন্টারের “স্পিড ইনস্টলেশন” বিভাগে যেতে হবে এবং এটি ইনস্টল করতে গেম ট্রায়াল মোডে প্রবেশ করতে হবে। তাছাড়া নতুন চালু হওয়া র‌্যামডিস্ক ট্রায়াল মোডের সাহায্যে Mi 10 Ultra ব্যবহারকারীরা ১৬ জিবি LPDDR5 র‌্যাম ব্যবহার করতে পারবেন। এতে ডিভাইজটির র‌্যামের গতি ৪৪ জিবি/সেকেন্ডের, ইউএফএস ৩.১ এর রিডিং এবং রাইটিং স্পীড যথাক্রমে ১৭০০ এমবি+ এবং ৭৫০এমবি+ হবে।

বন্ধুদের সাথে নিউজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂




যেকোনো সমস্যা হলে গ্ৰুপে পোস্ট করলে অথবা পেজে মেসেজ দিলে সমাধান পেয়ে যাবেন 🔥🌺♥️🍀🌷
আমার সাথে যোগাযোগ করার জন্য,

Comment

Previous Post Next Post