iPhone 12 সিরিজে চার্জার না থাকা নিয়ে শাওমির খোঁচা!

 

২০২০ সালের সবথেকে বিতর্কিত স্মার্টফোন লঞ্চ ইভেন্টের তালিকা করলে আ্যপলের iPhone 12 সিরিজের নাম সবার আগে আসবে। নতুন আইফোনে পুরনো ডিজাইন ব্যবহার করার পাশাপাশি যে বিষয়টি সবথেকে বেশি সমালোচনার জন্ম দিয়েছে তা হলো বক্স থেকে চার্জিং ব্রিক সরিয়ে ফেলা। ফলে ফোনটির ঘোষণা মাত্রই সোশ্যাল মিডিয়ায় নেতিবাচক মন্তব্যের বন্যা বয়ে গেছে।

শাওমি

যদিও আ্যপলের যুক্তি ছিলো বিশ্বব্যাপী ক্রমবর্ধমান ই-বর্জ্য কমানোর জন্য, তবুও এই উদ্যোগ কিন্তু সেটা সমালোচনার সামনে টিকতে পারেনি। এই ইস্যুটি কেন্দ্র করে স্যামসাং, ওয়ানপ্লাসের মতো জনপ্রিয় ব্র্যান্ডগুলো আ্যপলকে ‘ট্রল’ করার সুযোগ হাতছাড়া করেনি। অ্যাপলকে নিয়ে মশকরা তালিকায় এবার যুক্ত হলো চাইনিজ টেক জায়ান্ট শাওমিও। যদিও আ্যপলকে নকল করায় শাওমিই সবার থেকে এগিয়ে থাকে সবসময়। কিন্তু এবার দেখা যাচ্ছে শাওমিও এবার আ্যপলের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানাতে পারেনি।

 

এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি আ্যপলকে ট্রল করে টুইট বার্তায় শাওমি দাবি করেছে, তারা ইউরোপে প্লাস্টিকের ব্যবহার প্রায় ৬০ শতাংশ কমিয়ে আনতে বদ্ধপরিকর। তবুও আমাদের ফোনে বক্সে চার্জার, ক্যাবল এবং কেস ও থাকবে। যদিও ওই টুইট পোস্টে সরাসরি iPhone 12’কে কিছুই বলা হয়নি, তবে সূক্ষ্মভাবে আ্যপলকে ব্যাঙ্গ করার ছাপ স্পষ্ট এখানে। মূলত iPhone 12-কে কেন্দ্র করে নিজস্ব ডিভাইসের প্রচারের অভিনব পন্থা অবলম্বন করেছে শাওমি – তাতে কোনো সন্দেহ নেই! তবে যাইহোক, এখনো অবধি এই সমস্ত সমালোচনার কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি অ্যাপল।

এছাড়া বর্তমানে শাওমি তাদের ওয়্যারড এবং ওয়্যারলেস উভয় চার্জিং সলিউশনকে আরো উন্নত করায় মনোযোগ দিচ্ছে। কিছুদিন আগেই কোম্পানি অ্যানাউন্স করেছিল বিশ্বের প্রথম ১০০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি, এছাড়া সম্প্রতি বিশ্বের সবচেয়ে ফাস্ট ওয়্যারলেস চার্জিং টেকনোলজির ঘোষণাও দিয়েছে শাওমি। সুতরাং এতে তাদের ই-বর্জ্য কমানোর এই উদ্যোগ কতটা সফল হয় এখন তা দেখার জন্য আরও কিছু সময় অপেক্ষা করতে হবে আমাদের।

বন্ধুদের সাথে নিউজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂




যেকোনো সমস্যা হলে গ্ৰুপে পোস্ট করলে অথবা পেজে মেসেজ দিলে সমাধান পেয়ে যাবেন 🔥🌺♥️🍀🌷
আমার সাথে যোগাযোগ করার জন্য,

Comment

Previous Post Next Post