টেলিস্কোপিক ক্যামেরা নিয়ে কাজ করছে শাওমি

 

স্মার্টফোনে ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তিতে অন্যান্য ব্র্যান্ডের তুলনায় শাওমি অনেকটাই এগিয়ে থাকলেও ক্যামেরা টেকনোলজিতে উল্লেখযোগ্য কোনো উদ্ভাবন আনতে পারেনি তারা। কিন্তু মর্ডার্ন যুগে স্মার্টফোনের একটি গুরুত্বপূর্ণ ভাগ হচ্ছে ক্যামেরা। দিনকে দিন বাড়ছে মোবাইল ফটোগ্রাফির জনপ্রিয়তা, তাই তো সাম্প্রতিক সময়ে  মোবাইল ফটোগ্রাফির মান উন্নয়নে জোর দিচ্ছে স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠাগুলোও। এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি চাইনিজ টেক জায়ান্ট শাওমি তাদের ফোনে মেকানিক্যাল লেন্স ব্যবহারের ঘোষণা দিয়েছে, যা স্মার্টফোন ক্যামেরা প্রযুক্তিতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন নিয়ে আসবে।

Animated GIF - Find & Share on GIPHY

৫-৭ নভেম্বরে চীনে অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া শাওমির বার্ষিক ডেভেলপার কনফারেন্সে সম্মেলনে অত্যাধুনিক এই ক্যামেরা প্রযুক্তির ঘোষণা এসেছে। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, বর্তমানে জুম করে ছবি তোলার জন্য স্মার্টফোনে আলাদা টেলিস্কোপ ক্যামেরা লেন্সের প্রয়োজন পরে, তবে আগামীতে তারা ক্যামেরার মধ্যেই টেলিস্কোপিক লেন্স ইন্টিগ্রেট করবে শাওমি। শাওমির দাবি, তাদের মেকানিক্যাল টেলিস্কোপ লেন্স প্রযুক্তি সাধারণ স্মার্টফোন ক্যামেরার থেকে ৩০০ শতাংশ বেশি আলো ধারণ এবং ২০% বেশি শার্পনেস দিতে সক্ষম হবে, যা লো-লাইট কন্ডিশনে ছবি তোলার জন্য আদর্শ।

 

মিডেকো ইভেন্টে প্রতিষ্ঠানটির ক্যামেরা ডিপার্টমেন্ট প্রধান জেং শুজং বলেন, ‘শাওমি সাধারণ পয়েন্ট-এন্ড-শুট ক্যামেরা থেকে এই রিট্র্যাক্টেবল (ক্যামেরার ভেতর থেকেই লেন্স জুম ইন-জুম) প্রযুক্তির অনুপ্রেরণা পেয়েছে। বিগত বছরগুলোতে স্মার্টফোন ক্যামেরা প্রযুক্তি অনেক ধাপ এগোলেও তা মিররলেস ক্যামেরা’কে টেক্কা দেয়ার মতো সক্ষমতা এখনো অর্জন করেনি।’ ওয়েইবো’তে শাওমি নতুন ক্যামেরার একটি ডেমো ভিডিও প্রকাশ করে যেখানে দেখা যায় জুম করার পাশাপাশি ম্যাক্রো শট নিতেও নতুন এই ক্যামেরা সমানভাবে কার্যকর।

শাওমির নতুন ক্যামেরা প্রযুক্তি ডেভেলপমেন্ট এর চূড়ান্ত পর্যায়ে থাকলেও এটি কবে নাগাদ বাজারে আসবে বা আদৌ আসবে কিনা সে সম্পর্কে শাওমি কিছু জানায়নি। উল্লেখ্য, এই কনসেপ্ট শাওমির অনেক আগেই স্যামসাং বাজারে নিয়ে এসেছিলো। ২০১৪ সালে Galaxy K Zoom নামের একটি স্মার্টফোন একই কনসেপ্ট এর বাজারে এনেছিলো স্যামসং। তবে তখনকার স্মার্টফোন ক্যামেরা প্রযুক্তি বর্তমানের মতো এগিয়ে ছিলো না বলে ফোনটিও সাফল্যের মুখ দেখেনি। তবে আগামীতে স্মার্টফোনে টেলিস্কোপিক রিট্র্যাক্টেবল লেন্স সংযোজনের পুরো ব্যাপারটাই যে যথেষ্ট সময়সাপেক্ষ, সে বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই।

বন্ধুদের সাথে নিউজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂




যেকোনো সমস্যা হলে গ্ৰুপে পোস্ট করলে অথবা পেজে মেসেজ দিলে সমাধান পেয়ে যাবেন 🔥🌺♥️🍀🌷
আমার সাথে যোগাযোগ করার জন্য,

Comment

Previous Post Next Post