স্বাধীন ব্র্যান্ড হিসেবে যাত্রা শুরু করলো পোকো

 

২০১৮ সালে শাওমির হাত ধরে Poco F1 দিয়ে যাত্রা শুরু করার পর দীর্ঘ  বছর বিরতি দিয়ে আবার ফিরে এসেছে পোকো। এই বছরের জানুয়ারিতে শাওমি ইন্ডিয়া প্রধান মনু কুমার জৈন টুইটারে জানিয়েছিলেন, পোকো খুব শীঘ্রই শাওমি থেকে আলাদা হয়ে স্বাধীন একটি ব্র‍্যান্ড হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছে। তবে সেটা কোনো অফিশিয়াল বিবৃতি ছিলো না। তাছাড়া এই সময়ের মধ্যে পোকো মূলত শাওমির বিভিন্ন রেডমি ফোনকে রিব্র‍্যান্ড করে বাজারে ছাড়ছিলো, যাতে ভক্তরাও অবশ্য কিছুটা হতাশ হয়েছিলেন।

পোকো

তবে এবার আনুষ্ঠানিক ভাবে চাইনিজ টেক জায়ান্ট শাওমি থেকে সুম্পূর্ণ আলাদা ও স্বাধীন ব্র্যান্ড হিসেবে পথ চলার ঘোষণা দিয়েছে পোকো। এই শীগ্রই কাগজে কলমে এই আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করবে প্রতিষ্ঠান দুটি। সম্প্রতি পোকো তাদের অফিশিয়াল টুইটার হ্যান্ডেলে “আমাদের নতুন যাত্রায় আপনারা সকলে আমন্ত্রিত” শিরোনামের সাথে একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছে। একই সাথে ওই পোস্টে নিজেদের অর্জন তুলে ধরে বেশ কিছু “ব্র‍্যান্ড প্রমিস” ও শেয়ার করেছে পোকো।

পোকোর তিনটি প্রতিশ্রুতি

  • আধুনিক প্রযুক্তির সংযোজন
  • মতামত ভিত্তিক প্রোডাক্ট ডিজাইন
  • বাজারের সাথে তাল মিলিয়ে বিকাশ লাভ

পোকো জানায়, তাদের প্রথম স্মার্টফোন Poco F1 গ্লোবালি প্রায় ২.২ মিলিয়নের বেশি ইউনিট বিক্রি হয়েছে। এছাড়া বিশ্বজুড়ে ৬ মিলিয়নের বেশি স্মার্টফোন বিক্রির মাইলফলক স্পর্শ করেছে পোকো। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গত তিন বছরে ৩৫ এরও বেশি অঞ্চল ও বাজারে প্রবেশ করেছে পোকো। যার মধ্যে রয়েছে ইংল্যান্ড, স্পেন, ইতালি এর মতো ইউরোপীয় দেশগুলোও।

পোকো

পোকো ভক্তদের এখন সম্ভবত একটাই দাবি রয়েছে আর তা হলো ভবিষ্যতে যেনো আর শাওমি ফোন আর রিব্র‍্যান্ড করে বাজারে না আনা হয়। এছাড়া পোকো সম্প্রতি পাওয়ার ব্যাঙ্ক ও অন্যান্য অডিও অ্যাকসেসরিজ এর দিকেও নজর দিয়েছে । আশা করা যায় খুব শীঘ্রই আমরা তাদের বাজারে দেখতে পাবো। যদিও শাওমি থেকে পোকো আলাদা হলেও, পুরপুরি প্রতিষ্ঠিত হওয়ার আগে পর্যন্ত আরও কয়েক বছর শাওমি ম্যানুফেকচারিং ফেসিলিটি, আরএন্ডডি ও এমআইইউআই সফটওয়্যার ব্যবহার করতে পারে পোকো।

বন্ধুদের সাথে নিউজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂




যেকোনো সমস্যা হলে গ্ৰুপে পোস্ট করলে অথবা পেজে মেসেজ দিলে সমাধান পেয়ে যাবেন 🔥🌺♥️🍀🌷
আমার সাথে যোগাযোগ করার জন্য,

Comment

Previous Post Next Post