৬০ কোটি টাকার অ্যাপল পণ্য বহনকারী ট্রাক হাইজ্যাক

 

নিজেদের কোয়ালিটিফুল প্রিমিয়াম প্রোডাক্টের জন্য বিশ্বজুড়ে বিখ্যাত মার্কিন টেক জায়ান্ট অ্যাপল। গুনগত মান ও প্রিমিয়ামনেস এর কারণে অ্যাপল প্রোডাক্টের দামটাও অন্যান্য ব্র্যান্ডের তুলনায় অনেক বেশি হয়ে থাকে। অ্যাপল প্রোডাক্টে দাম ও চাহিদা এতটাই বেশি যে, অনেকে নিজেদের কিডনিও পর্যন্ত বিক্রি করে দেন এসব এক্সপেন্সিভ পণ্যের জন্য। তাছাড়া অ্যাপল প্রোডাক্টে দাম বেশি হওয়া এসব পণ্যের লুটপাট ও চুরির ঘটনাও খুবই সাধারণ। এরই ধারাবাহিকতায় এবার সামনে এসেছে অ্যাপল প্রোডাক্টে ডাকাতির আরেকটি খবর।

তবে এবার সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ডাকাতিটি অন্যান্য বারের মতো সাধারণের না। সাধারণত অ্যাপল চুরি হয় অ্যাপলের ফিজিক্যাল স্টোরগুলোতে প্রকাশ্যে, কিন্তু এবার অ্যাপল প্রোডাক্ট বহনকারী একটি ট্রাক ছিনতাই করে গিয়েছে দুর্বৃত্তকারীরা। রিপোর্ট অনুযায়ী, একটি ডাকাত দল যুক্তরাজ্যের নর্থহ্যাম্পশায়ারে থেকে লুট করে নিয়ে যায় ৪৮ প্যালেটের অ্যাপল প্রোডাক্ট বহনকারী এই ট্রাকটি। চুরি যাওয়া এসব পণ্যের মধ্যে ছিল অ্যাপল ওয়াচ, আইপড ও আইপ্যাড সহ iPhone 11 এর বিভিন্ন মডেল।

 

হাইজ্যাক হওয়া এই ট্রাকে ৫ মিলিয়ন ডলার সমমূল্যের পণ্য ছিল, যা বাংলাদেশী মুদ্রায় প্রায় ৬০ কোটি টাকা। ঘটনাস্থলে পুলিশ জানায়, চোরেরা মালামাল বহনকারী ভ্যানটিকে লুট করার সময় এর ড্রাইভার ও নিরাপত্তা কর্মীকে বেঁধে রাখে। তারপর নিজেদের ট্রাকে মালামাল গুলো পারাপার করে লুটকৃত ভ্যান ও জিম্মিকৃতদের পেছনে ছেড়ে দেয়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এ বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করছে এবং যারা বর্তমানে কমদামে আইফোন বিক্রি করে ও অস্বাভাবিক ভাবে এই প্রোডাক্টগুলোর লেনদেন করেছে তাদের খুঁজছে।

এর আগেও বেশ কয়েকবার ডাকাতির ঘটনা ঘটেছিলো অ্যাপলের সাথে। ২০১৩ সালে প্রায় ১.৩ মিলিয়ন ডলার সমমূল্যের প্রোডাক্ট লুট হয়েছিল ফ্রান্স ও প্যারিসে। তাছাড়া ২০১৬ সালে অ্যাপল স্টোরের এক কর্মীই চুরি করেছিল বেশ কিছু দামি পণ্য। এছাড়া ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রে ক্যালিফোর্নিয়ায় ঘটে আরেকটি বড় ডাকাতির ঘটনা। ওই সময় একটি গাড়িতে করে প্রায় ৭০ হাজার ডলার সমমূল্যের আইফোন লুট করে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তকারীরা।

বন্ধুদের সাথে নিউজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂

ক্রেডিট




যেকোনো সমস্যা হলে গ্ৰুপে পোস্ট করলে অথবা পেজে মেসেজ দিলে সমাধান পেয়ে যাবেন 🔥🌺♥️🍀🌷
আমার সাথে যোগাযোগ করার জন্য,

Comment

Previous Post Next Post