১০০টি অ্যাপল স্টোর বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অ্যাপল

 

চলমান কভিড-১৯ মহামারীর দ্বিতীয় ছোবল থেকে রক্ষা পেতে এবার ক্যালিফোর্নিয়ার সমস্ত অ্যাপল স্টোর বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মার্কিন টেক জায়ান্ট অ্যাপল, যার মধ্যে রয়েছে সান ফ্রান্সিসকোর বে অঞ্চলও। আপাতত ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের ৫৩টি স্টোরে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে অ্যাপল এবং গ্রাহকদের অবহিত করা হয়েছে যে দোকানগুলো অস্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। রিপোর্ট অনুযায়ী খুব শীগ্রই বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে প্রায় ১০০টি রিটেইল স্টোর সাময়িক ভাবে বন্ধ করার পরিকল্পনা করছে কোম্পানি।

যদিও এখনো কিছু অমীমাংসিত অর্ডার পিকআপের জন্য ২৪ ডিসেম্বর ২০২০ এর মধ্যে ডেলিভারি দেয়ার জন্য আদেশ জারি করেছে অ্যাপল। ম্যাক রিউমারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, কবে নাগাদ এই স্টোরগুলো রিওপেন করা হবে সে বিষয়ে কিছুই নিশ্চিত করেনি অ্যাপল। রিপোর্ট অনুসারে যুক্তরাষ্ট্র ছাড়াও যুক্তরাজ্যের ১৬টি এবং জার্মানি ও নেদারল্যান্ডসে ১৮টি এবং স্টোর বন্ধ করে দিয়েছে কোম্পানি।

 

চলতি সপ্তাহেই মেক্সিকো ও ব্রাজিলেও বন্ধ করা হবে আরও বেশ কিছু অ্যাপল স্টোর। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এখনও খোলা থাকা অ্যাপল স্টোরগুলি মূলত সীমিত “এক্সপ্রেস” ধারণায় কাজ করছে। অর্থাৎ তারা শুধু পিকআপ এবং জেনুইন বারের মাধ্যমে নিজেদের কার্যক্রম চালাচ্ছে, এবং দোকানের ভেতরে কেনাকাটা কিংবা ব্রাউজিংয়ের অনুমতি তারা দিচ্ছে না আপাতত। চলমান মহামারীর কারণে চলতি বছরের শুরুতেও কয়েক দফায় বিশ্বজুড়ে নিজেদের স্টোর গুলো ষাট-ডাউন রেখেছিলো অ্যাপল।

চলমান মহামারীর কারণে সমগ্র বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে অ্যাপল স্টোর বন্ধ করা হলেও জুন থেকে বিভিন্ন দেশে ধীরে ধীরে দোকান পুনরায় চালু করতে শুরু করে কোম্পানি, কিন্তু স্থানীয় পরিস্থিতি এবং নির্দেশিকা রক্ষা করতে আবার নিজেদের দোকানগুলো বন্ধ করতে বাধ্য হচ্ছে অ্যাপল। এছাড়া বিশ্বজুড়ে এই মুহুর্তে, ৪০০ টি অ্যাপলস্টোর এখনও পর্যন্ত নিজেদের কার্যক্রম চালাচ্ছে যার সবগুলিই পরিপূর্ণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ করছে।

বন্ধুদের সাথে নিউজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂




যেকোনো সমস্যা হলে গ্ৰুপে পোস্ট করলে অথবা পেজে মেসেজ দিলে সমাধান পেয়ে যাবেন 🔥🌺♥️🍀🌷
আমার সাথে যোগাযোগ করার জন্য,

Comment

Previous Post Next Post