বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম স্মার্টফোন ব্র্যান্ড এখন শাওমি

 

চলমান কোভিড পরিস্থিতি স্মার্টফোন ইন্ডাস্ট্রি সহ প্রায় সকল শিল্পে ধস নেমে এলেও সাম্প্রতিক সময়ে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে স্মার্টফোন বাজার। মাঝখানে পরিস্থিতি এতটাই করুন হয়ে গিয়েছিল যে অনেক ম্যানুফাকচারারকেই কিছুদিনের জন্য হলেও নিজেদের উৎপাদন বন্ধ করে দিতে হয়েছিল ক্রমবর্ধমান এই লকডাউনের জন্য। তাছাড়া চলতি বছরের প্রথম ও দ্বিতীয় প্রান্তিকেও সেল লক্ষ্য অনুযায়ী ভালো হয়নি। তবে বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে এসে ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে অনেক প্রতিষ্ঠান। যদিও গতবছরের তুলনায় এই বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে খুব একটা বিক্রি ভালো হয়নি, বরং তা পড়তির দিকে রয়েছে।

শাওমি

সম্প্রতি বাজার বিশ্লেষক সংস্থা গার্টনার এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে বিক্রি হয়েছে প্রায় ৩৬৬ মিলিয়ন ইউনিট স্মার্টফোন। রিপোর্ট অনুযায়ী, এই প্রান্তিকে ২২ শতাংশ মার্কেট শেয়ার নিয়ে আবারো র‌্যাংকিয়ে শীর্ষস্থান দখল রেখেছে স্যামসাং। অন্যদিকে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়ে নিজেদের মার্কেট শেয়ারের ২১ শতাংশ হারিয়েছে হুয়াওয়ে, যা ২০১৯ এর হুয়াওয়ে গ্লোবাল মার্কেট শেয়ারের তুলনায় অত্যন্ত হতাশাজনক‌। তবে এবার সবথেকে বড় চমক দেখিয়েছে শাওমি, অ্যাপলকে সরিয়ে এখন বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম‌ স্মার্টফোন ব্র্যান্ড হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে চাইনিজ টেক জায়ান্ট শাওমি।

 

যদিও অ্যাপলের গতবছরের তুলনায় এবছরেও মার্কেট শিপমেন্ট একইরকম ছিল তবে এ বছরের তৃতীয় প্রান্তিক পর্যন্ত  প্রায় ৪৪.৫ ইউনিট স্মার্টফোন শিপমেন্ট করেছে প্রতিষ্ঠানটি। তবে একই সময়ে সময়ে ৪৪.৪ মিলিয়ন স্মার্টফোন শিপমেন্ট করেছে শাওমি। মূলত তাদের Redmi Note 9 সিরিজ এবং বাজেট রেঞ্জের ৫জি ডিভাইজগুলোর কল্যানে বাজারে শাওমির চাহিদা বৃদ্ধি পেয়েছে। শুধুমাত্র তাই নয়, হুয়াওয়ের গ্লোবাল মার্কেটে পতন শাওমির মার্কেট শেয়ারে ১২.১ শতাংশ দখলের পেছনে বড় ভূমিকা রেখেছে।

গার্টনার এর রিপোর্ট অনুযায়ী, চলতি বছরের স্মার্টফোন বাজারের মন্দা অবস্থা আগামী বছর পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে। তাছাড়া চলমান মহামারীর কারনে মানুষের ব্যয় অনেকটা কমিয়ে দেয়াও এই মন্দার কারণ বলে ধারণা করছে গার্টনারের রিসার্চ টিম। তবে ইতিমধ্যে গ্লোবাল স্মার্টফোন মার্কেটের বড় বাজার ভারত, ইন্দোনেশিয়া ও ব্রাজিলে যথাক্রমে ৯.৩, ৮.৫ এবং ৩.৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধি দেখিয়েছে স্মার্টফোন শিপমেন্টে। এ বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে বিক্রি হয়েছে মোট ৩৬৬ মিলিয়ন স্মার্টফোন, যা গতবছরের একই সময়ের তুলনায় ৫.৭ শতাংশ কম।

বন্ধুদের সাথে নিউজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂




যেকোনো সমস্যা হলে গ্ৰুপে পোস্ট করলে অথবা পেজে মেসেজ দিলে সমাধান পেয়ে যাবেন 🔥🌺♥️🍀🌷
আমার সাথে যোগাযোগ করার জন্য,

Comment

Previous Post Next Post