এ বছরই আসছে স্যামসাংয়ের ২০০ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সেন্সর

 

স্মার্টফোন ক্যামেরা নিয়ে কোম্পানিগুলো যেনো মেগাপিক্সেলের দৌড়ে নেমেছে। প্রতিটি স্মার্টফোন নির্মাতা চেষ্টা করছে সর্বোচ্চ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা তাদের ফোনে বসাতে। তাদের সাথে তাল মিলিয়ে ইমেজ সেন্সর নির্মাতা কোম্পানিগুলো একই চেষ্টা করছেন। আমরা ইতিমধ্যেই ৪৮ মেগাপিক্সেল, ৬৪ মেগাপিক্সেল ও ১০৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ফোন দেখেছি। বর্তমান বিশ্বে মেগাপিক্সেলের বিচারে মোবাইল ক্যামেরা প্রযুক্তিতে সবার চেয়ে এগিয়ে রয়েছে দক্ষিণ কোরীয় টেক জায়ান্ট স্যামসাং।

সকলকে অবাক করে গত বছরই স্যামসাং বাজারে এনেছিল ১০৮ মেগাপিক্সেলের এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় ইমেজ সেন্সর। এরই ধারাবাহিকতায় ১০৮ মেগাপিক্সেলকে ছাড়িয়ে এবার পরবর্তী প্রজন্মের ২০০ মেগাপিক্সেল ইমেজ সেন্সর বাজারে আনার পরিকল্পনা করছে স্যামসাং। সম্প্রতি অনলাইনে ফাঁস হয়েছে স্যামসাংয়ের আপকামিং এই ক্যামেরা সেন্সরটি সম্পৃক্ত বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। জনপ্রিয় টিপস্টার ‘আইস ইউনিভার্স’ সর্বপ্রথম তার টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

 

‘আইস ইউনিভার্স’ দাবি করেন, ২০২১ সালের মধ্যেই দেখা মিলবে স্যামসাংয়ের ২০০ মেগাপিক্সেল ইমেজ সেন্সর এর। ধারণা করা হচ্ছে, স্যামসাং এর ফোল্ডেবল স্মার্টফোন লাইন‌আপ Galaxy Z Fold এর হাত ধরে অভিষেক ঘটবে এই ক্যামেরাটির। যদিও স্যামসাং সাধারণত ফ্ল্যাগশিপ নোট সিরিজেই নতুন ও এক্সক্লুসিভ ফিচারগুলো নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করে থাকে। সেটি সফল হলে পরবর্তীতে এস সিরিজেও একই ফিচার চিয়ে আসে। তবে সঙ্গত কারণেই এ বছর গ্যালাক্সি নোট সিরিজের নতুন ফোন আসার সম্ভাবনা খুবই কম।

তাই অনেকেই মনে করছেন Galaxy Z Fold সিরিজই হতে পারে ২০০ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার সাথে বাজারে সাম্ভাব্য প্রথম স্মার্টফোন। অন্যদিকে গত বছর থেকেই গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিলো যে, ৬০০ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সেন্সর নিয়ে কাজ শুরু করেছে স্যামসাং। তবে এই খবরটি নিয়ে এখনো বিস্তারিত কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। এদিকে যদি আইস ইউনিভার্স এর ২০০ মেগাপিক্সেল সেন্সর এর দাবি যদি সত্যি হয়, তাহলে এটা মানতেই হবে আমাদের কল্পনার থেকেও অনেকটা এগিয়েছে স্মার্টফোনের ক্যামেরা প্রযুক্তি।

বন্ধুদের সাথে নিউজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂




যেকোনো সমস্যা হলে গ্ৰুপে পোস্ট করলে অথবা পেজে মেসেজ দিলে সমাধান পেয়ে যাবেন 🔥🌺♥️🍀🌷
আমার সাথে যোগাযোগ করার জন্য,

Comment

Previous Post Next Post