শীগ্রই অফিসিয়ালি বাংলাদেশে আসছে স্পটিফাই

 

আমার মনে হয়না মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিস, স্পোটিফাই এর ব্যাপারে নতুন করে কিছু বলার আছে। আপনি নিশ্চই জানেন, এটি হলো বিশ্বের সবথেকে জনপ্রিয় এবং সবথেকে প্রিমিয়াম মিউজিক স্ট্রিমিং প্লাটফর্ম। তবে আপনি হয়তো এটাও জেনে থাকবেন যে ইতোপূর্বে বাংলাদেশে অফিসিয়ালি এভেইলেবল ছিল না বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় এই অনলাইন মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিসটি। তবুও এতো দিন অনেকেই বাংলাদেশে ভিপিএন দিয়ে ব্যবহার করে আসছিলেন স্পোটিফাই।

তবে শীগ্রই ফ্যানসদের অপেক্ষার পালা অবশেষে এবার শেষ হতে চলেছে। সম্প্রতি স্পোটিফাই অফিসিয়ালি নিশ্চিত করেছে যে, শীগ্রই বাংলাদেশে অফিসিয়ালি আসছে স্পোটিফাই। গত মঙ্গোলবার  এক টুইট বার্তায় কোম্পানি জানিয়েছে, আগামী কয়েকদিনের মধ্যে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, নাইজেরিয়া সহ ৮০টির বেশি নতুন দেশে আনুষ্ঠানিক ভাবে যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় এই অনলাইন মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিসটি।

 

এদিকে সম্প্রতি কোম্পানির সিইও ‘ড্যানিয়েল ইক’ এক ইন্টারভিউতে  বলেছেন, ক্যারিবিয়ান, ল্যাটিন আমেরিকা, ইউরোপ, আফ্রিকা ও এশিয়া উপমহাদেশের এসব দেশের ৮০টির বেশি মার্কেটে গিয়েছে ১ বিলিয়ন ব্যবহার নিজেদের ইউজারবেজে যুক্ত করতে যাচ্ছে স্পটিফাই। বর্তমানের বিশ্বের ৯৯টি দেশে উপলব্ধ আছে স্পোটিফাই সার্ভিস। ২০১৬ সালে যাত্রা শুরুর পর এতো সংখ্যাক দেশে পৌঁছাতে কোম্পানির সময় লেগেছে প্রায় ১২ বছর।

কিছুদিন আগেই বিশ্বজুড়ে স্পোটিফাই এর মান্থলি অ্যাক্টিভ ইউজারে সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৩৪৫ মিলিয়ন (৩৪.৫ কোটি)। এছাড়া গ্লোবালি স্পোটিফাই এর মান্থলি পেইড সাবস্ক্রিপশন (স্পটিফাই প্রিমিয়াম) ইউজার রয়েছে প্রায় ১৫৫ মিলিয়ন (১৫.৫ কোটি) এরও বেশি। জানা গিয়েছে অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও শুরু থেকেই একই সাথে প্রিমিয়াম ও ফ্রি সার্ভিস অফার করবে স্পটিফাই। ‘ইন্ডিভিজুয়াল, ফ্যামিলি, ডুও এবং স্টুডেন্ট’ প্লানের মধ্যে নিজের পছন্দের প্ল্যানটি বেসহ নিতে পারবেন ইউজাররা।

বন্ধুদের সাথে নিউজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂




যেকোনো সমস্যা হলে গ্ৰুপে পোস্ট করলে অথবা পেজে মেসেজ দিলে সমাধান পেয়ে যাবেন 🔥🌺♥️🍀🌷
আমার সাথে যোগাযোগ করার জন্য,

Comment

Previous Post Next Post