iPhone mini এর উৎপাদন বন্ধ করতে যাচ্ছে অ্যাপল

 

গত বছর অ্যাপলের iPhone 12 সিরিজে নতুন সংযোজন ছিলো iPhone 12 mini। মাত্র ৫.৪ ইঞ্চির ডিসপ্লে নিয়ে আইফোন ১২ মিনি অনেকেরই নজর কাড়তে সক্ষম হয়েছিলো। বেশ কয়েকবছর পর “কম্প্যাক্ট ফ্ল্যাগশিপ” নিয়ে আসায় অনেক রিভিউ‌য়ারই সাধুবাদ জানায় অ্যাপলকে। তবে প্রত্যাশা অনুযায়ী ফোনটি বিক্রি না হওয়ায় এবার আইফোন ১২ মিনি উৎপাদন বন্ধের বিষয়ে চিন্তাভাবনা শুরু করেছে অ্যাপল। বিজনেস ইনসাইডার এর রিপোর্ট অনুসারে, ২০২১ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিকে আইফোন ১২ মিনি প্রোডাকশন বন্ধ করতে পারে অ্যাপল।

iPhone 12 লাইনআপের সবথেকে সাশ্রয়ী ডিভাইজ যত সত্ত্বেও ভক্তদের আগ্রহ টানতে সক্ষম হয়নি iPhone 12 mini। অন্যদিকে, এই সিরিজের সবথেকে দামী সদস্য iPhone Pro Max এর চাহিদা প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে। সুতরাং বলা হচ্ছে iPhone 12 mini এর প্রোডাকশন লাইন কমিয়ে iPhone Pro Max এর উৎপাদন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে অ্যাপল। যদিও বিশ্লেষক মরগ্যান চেজ এবং উইলিয়াম ইয়াং এই ব্যাপারে অনেক আগেই পুর্ভাবাস দিয়েছিলেন।

 

ইয়াং এর মতে, iPhone 12 mini এর আশানুরূপ সাফল্য না পাওয়ার জন্য অ্যাপল তাদের আসন্ন আইফোন এসই লাইন‌আপের তৃতীয় স্মার্টফোনের রিলিজও পিছিয়ে নিতে পারে অ্যাপল। Consumer Intelligence Research Partner (CIRP) এর বিশ্লেষণেও একই তথ্য ফুটে উঠেছে। সম্প্রতি তারা iPhone 12 সিরিজের বিক্রি সংক্রান্ত একটি পরিসংখ্যান প্রকাশ করে। যেখানে ভ্যানিলা iPhone 12 মোট বিক্রি এর ২৭ শতাংশ দখল করেছে।

রিপোর্ট অনুযায়ী, iPhone Pro এবংiPhone Pro Max উভয়েই ২০% পর্যন্ত বিক্রি হয়েছে। অন্যদিকে iPhone 12 mini মিনি মাত্র ৬ শতাংশ বিক্রি হয়েছে। পরিসংখ্যানের বাকী স্মার্টফোনগুলো আইফোনের অন্যান্য লাইন‌আপের স্মার্টফোন। উল্লেখ্য, ২০১৯ সালে স্যামসাং ও Galaxy S10e নামের একটি কম্প্যাক্ট ফ্ল্যাগশিপ বাজারে আনে। আর বরাবরের মতো সেটিও ফ্যান ফেভারিটের তকমা পেলেও বাজারে সাফল্য দেখাতে পারেনি। পরবর্তীতে স্যামসাংও ওই ফোনটির উৎপাদন বন্ধ করে দেয়।

বন্ধুদের সাথে নিউজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂




যেকোনো সমস্যা হলে গ্ৰুপে পোস্ট করলে অথবা পেজে মেসেজ দিলে সমাধান পেয়ে যাবেন 🔥🌺♥️🍀🌷
আমার সাথে যোগাযোগ করার জন্য,

Comment

Previous Post Next Post