এলজি’র হারানো বাজার ধরতে মরিয়া স্যামসাং-অপ্পো

২০১৫ সাল থেকে ক্রমশ বেড়ে চলা ক্ষতির বোঝা সরিয়ে ফেলতে অবশেষে কিছুদিন আগে স্মার্টফোন ইন্ডাস্ট্রি থেকে সরে আসার ঘোষণা দিয়েছে দক্ষিণ কোরীয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড এলজি। নিজেদের স্মার্টফোন ব্যবসা গুটিয়ে নেওয়ার ঘোষণা করতেই শুরু হয়েছে নতুন করে অঙ্ক কষার পালা। স্মার্টফোন ইন্ডাস্ট্রি থেকে সরে এলে এক সময় বিশ্বের তৃতীয় বৃহৎ স্মার্টফোন ব্র্যান্ডের তকমা অর্জন করা এলজি এর বর্তমান মার্কেট শেয়ার কোন ব্র্যান্ডের দখলে আসবে তা নিয়ে তৈরি হচ্ছে নানা সমীকরণ।

সাম্প্রতিক সময়ে এলজি না পেরেছে প্রিমিয়াম স্মার্টফোন সেগমেন্টে অ্যাপল বা স্যামসাং’কে টেক্কা দিতে। আবার মিড রেঞ্জ সেগমেন্টে চাহিনিজ ব্র্যান্ডগুলোর ভ্যালু ফর মানি প্রোডাক্টের সাথে এলজি ধারেভারে সব দিক থেকেই পরাস্ত হয়েছে। ২০১৫ সালের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিক থেকে লাগাতার লোকসানের মুখ দেখা এলজি অবশেষে বাধ্য হয়েছে স্মার্টফোনের ব্যবসায় চিরতরে তালা দিতে। তবে এবার প্রশ্ন হচ্ছে, এলজির ছেড়ে যাওয়া মার্কেট শেয়ার কার ঝুলিতে আসছে?

রিপোর্ট বলছে, স্মার্টফোন ইন্ডাস্ট্রিতে এলজির এই শূণ্যস্থান পুরন করতে ইতিমধ্যে কোরীয় টেক জায়ান্ট স্যামসাং এবং চীনা টেক জায়ান্ট অপ্পো মুখোমুখি অবস্থানে দাঁড়িয়েছে। MoneyUDN একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, এলজির মূল বাজার দক্ষিণ কোরিয়া, দক্ষিনপূর্ব এশিয়া এবং ইউরোপের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন বাজার ইতিমধ্যে স্যামসাং তাদের দখলে নিয়ে রেখেছে। মিডরেঞ্জ এবং এন্ট্রি লেভেল মার্কেটে আগে থেকেই অপ্পো সরব উপস্থিতি থাকলেও সম্প্রতি প্রতিদ্দন্ধি ব্রান্ড শাওমি ও খুব দ্রুতই এগিয়ে চলেছে।

প্রসঙ্গক্রমে, ২০১৫ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিক থেকে শুরু হওয়া লোকসান থেকে এলজি স্মার্টফোন বিভাগ আর কাটিয়ে উঠতে পারেনি। যার ফলে ২০২০ সালে এলজি মোবাইলের এই ক্ষতির পরিমাণ এসে দাঁড়ায় ৭৫১ মিলিয়ন মার্কিন ডলারে। এর আগে, জানুয়ারি মাসে প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছিল, গত ছয় বছরে তাদের ৪.৫ বিলিয়ন ডলার লোকসান হয়েছে।

বন্ধুদের সাথে নিউজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂




যেকোনো সমস্যা হলে গ্ৰুপে পোস্ট করলে অথবা পেজে মেসেজ দিলে সমাধান পেয়ে যাবেন 🔥🌺♥️🍀🌷
আমার সাথে যোগাযোগ করার জন্য,

Comment

Previous Post Next Post